Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

সাইট মোবিলাইজেশন ও ভূমি জরিপ (অধ্যায় ৪)

সাইট মোবিলাইজেশন প্রকৌশলীদের মধ্যে বহুল ব্যবহৃত শব্দ। বাংলা একাডেমীর অভিধান অনুযায়ী মোবিলাইজশব্দটির বাংলা অর্থ হলো-ব্যবহার বা দ্বায়িত্বে নিয়োজনের জন্য একত্র করা বা যুদ্ধার্থে সমবেত করা।প্রকৌশলীদের কাছে নির্মানাধীন যেকোন সাইট অনেকটা যুদ্ধক্ষেত্রের মতো। একটি ভবন নির্মাণ করতে বহু প্রতিকূল পরিবেশ-পরিস্থিতি পার হতে হয়। তাই যুদ্ধে জয়লাভের জন্য প্রয়োজন বিভিন্ন ধরণের লোকবল, মালামাল ও যন্ত্রপাতীর সমাবেশ। এই সমস্ত কিছুর একত্রীকরণই হলো সরঞ্জাম সন্নিবেশকরণ বা সাইট মোবিলাইজেশন।

বলা যায়, সাইট মোবিলাইজেশন হলো নির্মাণ কাজের প্রথম ও গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। এই পর্যায়ের সাথে ভূমি জরিপ পর্যায়টি অঙ্গাঅঙ্গি ভাবে জড়িত। এই ধাপ দুইটিতে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর প্রকৌশলীদের  নজর দিতে হয়- যেগুলোকে উপ-পর্যায় আকারে নিচে দেয়া হলো-

৪.১ সন্নিবেশকরণ বা সাইট মোবিলাইজেশনঃ

৪.১.১ এই সময় সাইট শুরু করার আগে কাজের তালিকানুযায়ী প্রয়োজনীয় মালামাল, জনবল, যন্ত্রপাতীর তালিকা তৈরী করতে হয় এবং সেই সমস্ত সরঞ্জামগুলো কে সাইটে একত্রিত করা হয়।

৪.১.২ প্রস্তাবিত ভবনের নকশা দেখে শ্রমিকদের থাকার ঘর ও বাথরূম বা টয়লেট, বিভিন্ন ধরণের মালামাল রাখার স্থান, স্টোররূম, অফিস ঘরের জন্য এমনভাবে জায়গা নির্ধারণ করা হয় যেন পরবর্তিতে ভবন নির্মানের ক্ষেত্রে কোনরকম অসুবিধা না হয়। জায়গা নির্বাচনের পরপরই ঐ সমস্ত ঘর নির্মাণ করে ফেলতে হয়।

৪.১.৩ এছাড়া নিরাপত্তার জন্য বেষ্টনী ও বিভিন্ন ধরণের সরকারি সেবা যেমনঃ বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাসের ব্যবস্থা করাও এই পর্যায়ের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ।  

৪.২ ভূমি জরিপঃ

৪.২.১ প্রস্তাবিত সাইটে কিভাবে বা কোন রাস্তা ব্যবহার করে মালামাল আসবে এবং সেই সব মালামাল প্রাথমিক অবস্থায় কোথায় নামানো হবে তা নির্ধারণ করা হয় এই পর্যায়ে।

৪.২.২ এই সময়ে প্রস্তাবিত সাইটে প্রাথমিক জরিপ করে দেখা হয় যে, আশেপাশের ভবন থেকে প্রস্তাবিত ভবনের দূরত্ব কতটুকু। সেই সাথে ঐ সমস্ত ভবনের ভিত্তি তল বা ফাউণ্ডেশন লেভেল বর্তমান ভূমি থেকে কত নিচে আছে তাও খতিয়ে দেখা হয়।  

৪.২.৩  প্রস্তাবিত সাইটের আশেপাশে কোথায় বা কতদূরে নালা বা নর্দমা আছে তা জরিপ করা হয়। বেজমেন্ট নির্মাণের জন্য এই সমস্ত তথ্য জানাটা খুবই জরুরী। কারণ,  পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না নিলে বেজমেন্টের মাটি কাটার সময় এই সমস্ত নালা বা নর্দমা ভেঙ্গে গিয়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

৪.২.৪ এছাড়া ভূমির অভ্যন্তরে মাটি পরীক্ষার রিপোর্ট থেকে ভূমির অভ্যন্তরে পানির গভীরতা কতদূরে তা জেনে নেয়া হয় এবং সেই অনুযায়ী বেজমেন্ট নির্মাণের জন্য মাটি কাটার পদ্ধতি নির্ধারণ করতে হয়।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *