রাজউক ইমারত নির্মাণ বিধিমালা - ২০০৮ পর্ব-১

প্রাথমিক ট্যাব

রেজিস্টার্ড নং ডি এ-১; বাংলাদেশ গেজেট (অতিরিক্ত সংখ্যা) কতৃপক্ষ কতৃক প্রকাশিত, বৃহস্পতিবার, মে২৯, ২০০৮ইং
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়; প্রঞ্জাপন, তারিখ : ১৩ জৈষ্ঠ ১৪১৫ বঙ্গাব্দ/ ২৭মে ২০০৮ খ্রিষ্টাব্দ, এস.আর.ও নং ১২০-আইন ২০০৮ । Building Construction Act, 1952 (Act No. II of 1953) এর section 18 এ প্রদও ক্ষমতাবলে সরকার নিন্মরুপ বিধিমালা প্রণয়ন করিল, যথা :-
প্রথম অধ্যায় : প্রারম্ভিক
(১) সংক্ষিপ্ত শিরোনাম, প্রয়োগ ও প্রবর্তন :
১) এই বিধিমালা ঢাকা মহানগর ইমারত (নির্মাণ, উন্নয়ন, সংরক্ষণ ও অপসারণ) বিধিমালা- ২০০৮ নামে অভিহিত হইবে ।
২) ইহা Town Improvement Act-1953 ( Act No. XIII of 1953) এর অধীন প্রণীত ঢাকা মহানগর পরিকল্পনাভুক্ত এলাকার জন্য প্রযোজ্য হইবে ।
৩) ইহা অবিলম্ভে কার্যকর হইবে ।
(২) সংজ্ঞা : বিষয় বা প্রসঙ্গের পরিপন্হী কোন কিছু না থাকলে এই বিধিমালায়-
১) “অনুমোদিত নকশা” অর্থ আইনের বিধানানুযায়ী অনুমোদিত ভবন বা কাঠামোর নকশা;
২) “অথরাইজড্ অফিসার” অর্থ আইনের অধীন নিয়োগপ্রাপ্ত Authorized Officer;
৩) “অঙ্গন বা আঙিনা বা উঠান” অর্থ ভূমি বা অন্য যে কোন তলে অবস্থিত, সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে ভবনদ্বারা বেস্টিত পরিসর, যাহা স্থায়ীভাবে উন্মুক্ত;
৪) “অগ্নি-প্রতিরোধক দরজা” অর্থ বিশেষভাবে তৈরি দরজা যাহা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য তাপ ও আগুন সঞ্চালন এর প্রতিরোধক হিসাবে কাজ করে;
৫) “অগ্নি-প্রতিরোধক উপকরণ” অর্থ অগ্নি-প্রতিরোধক ক্ষমতাসম্পূর্ণ নির্মাণ উপকরণ;
৬) “অগ্নি-নিরাপদ সিঁড়ি” অর্থ বিভিন্ন তলা হইতে ল্যান্ডিং বা লবি দ্বারা সংযোজিত সিঁড়ি যাহা অগ্নি-প্রতিরোধক দরজা দ্বারা মূল বিল্ডিং হইতে আলাদা হইবে এবং ইমারতের বহিঃর্ভাগে খোলা স্থানের সহিত উন্মুক্ত থাকিবে;
৭) “অকুপেন্সী টাইপ” অর্থ বিধিমালার পরিশিষ্ট-৩ এ ইমারতের ব্যবহার ভিওিক শ্রেনীবিন্যাস যেইভাবে নির্ধারণ করা হইয়াছে ইহা এবং উক্ত নির্ধারিত ধরণের ব্যবহারের সহিত আনুষাঙ্গিক ব্যবহারের সংশ্লিষ্টতাও ইহার অন্তর্ভূক্ত হইবে;
৮) “অস্থায়ী ইমারত” অর্থ নির্দিষ্ট সময়ের জন্য কতৃপক্ষ কতৃক অনুমোদিত ইমারত যাহা ঐ নির্দিষ্ট সময়ের শেষে অপসারিত হইবে;
৯) “আইন” অর্থ Building Construction Act-1952 (Act No. II of 1953);
১০) “আবেদনকারী” অর্থ সংশ্লিষ্ট ভূমির বৈধ মালিক এমন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যিনি উক্ত ভূমিতে ইমারত নির্মাণ সংক্রান্ত বিষয়ে বিভিন্ন অনুমতি প্রাপ্তির জন্য আবেদন করেন এবং বৈধ মালিকের পরে আবেদনকারী হিসেবে আম-মোক্তারনামা বলে নিযুক্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানও ইহার অন্তর্ভূক্ত হইবে;
১১) “আবেদন” অর্থ ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ, বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ, ইমারত নির্মাণ, পাহাড় কর্তন ও পুকুর খননের জন্য অনুমোদন, বসবাস সনদ এবং সংশোধন, পরিবর্ধন এবং নবায়নের জন্য আবেদন;
১২) “আধা-বিচ্ছিন্ন ভবন” অর্থ এমন ভবন যাহার তিনপার্শ্ব বহিঃরাঙ্গনের দিকে উন্মুক্ত এবং এক পার্শ্ব অন্য ভবনের সহিত সংযুক্ত;
১৩) “আচ্ছাদিত স্থান” অর্থ ইমারত দ্বারা ভূমিতলসহ আচ্ছাদিত ক্ষেএ, যাহা প্লিন্থস্তরের ঠিক পরবর্তী স্তর বা তলা, তবে নিন্মলিখিত স্থানসমূহ ইহার অন্তর্ভূক্ত নয় :
(ক) বাগান, পারগোলা, তরশালা, জলাশয়, সুইমিংপুল(অনাচ্ছাদিত), গাছের নীচের বেদী, জলাধার, ফোয়ারা এবং আসন;
(খ) জলনির্গমন ব্যবস্থা, কালভাট, সেপটিক ট্যাংক, সোকপিট;
(গ) সীমানা প্রাচীর ও ফটক, কার্নিশ এবং সানসেড কতৃক আচ্ছাদিত স্থান;
১৪) “ইমারত” বা “ভবন” অর্থ আইনে সংজ্ঞায়িত Building;
১৫) “ইমারত নির্মাণ কমিটি” অর্থ আইনের section 3 এর sub-section (2) এর অধীনে গঠিত কমিটি;
১৬) “ইমারতের উচ্চতা” অর্থ ইমারতসংলগ্ন রাস্তা বা গলির গড় উচ্চতা হইতে একটি ইমারতের সর্বোচ্চ বিন্দুর খাড়া দুরত্ব, ইমারতের উচ্চতা নির্ধারণের ক্ষেএে নিন্মবর্ণিত বিষয়সমূহ বিবেচ্য হইবে, যথা :
( ক) ছাদ ঢালু হইলে এইক্ষেএে ঢালু ছাদের গড় উচ্চতা ধরা হইবে;
(খ) স্হাপতিক উপাদান, যাহা কেবলমাএ নান্দনিক ও অলংকরণের জন্য ব্যবহূত হয়, তাহা উচ্চতার অংশ হিসাবে গন্য করা হইবে না;
(গ) ঢালু এলাকায় নির্মাণের ক্ষেএে উচ্চতা নির্ণয়ের জন্য রাস্তার পরিবর্তে ইমারতের সর্বনিন্ম মেঝে তলকে গ্রহণ করা হইবে;
(ঘ) বেসামরিক বিমান চলাচল কতৃপক্ষের বিবেচনায় উচ্চতা অর্থাৎ ভবনের ছাদে অবস্থিত সিঁড়িঘর, জলাধার, লাইটনিং এরেস্টর বা এন্টেনা ইত্যাদির উচ্চতা বুঝাইবে;
১৭) “উন্নয়ন প্রকল্প বা প্রকল্প” অর্থ ইমারত বা ইমারতসমূহের নির্মাণকাজ;
১৮) “উচ্চতা” অর্থ-
(ক) করের উচ্চতার ক্ষেএে সম্পূরণকৃত মেঝের উপর হইতে ছাদের নীচ পর্যন্ত খাড়া পরিমাপ,
(খ) কোন তলার উচ্চতা হিসাবে একটি তলার মেঝের উপর হইতে অন্য তলার মেঝের উপর পর্যন্ত খাড়া পরিমাপ,
(গ) দেয়ালের উচ্চতা হিসাবে একটি দেওয়ালের ভূমি হইতে দেওয়ালের উপরিভাগ পর্যন্ত খাড়া পরিমাপ,
১৯) “এয়ারওয়েল বা লাইটওয়েল” অর্থ প্রাকৃতিক বায়ু ও আলো চলাচলের সুবিধা অর্জনের উদ্দেশ্যে ভবনের অভ্যন্তর বা বহিঃর্ভাগে অবস্থিত পরিসর যাহা একই জমিতে অবস্থিত ও ভবনের এক বা একাধিক পার্শ্ব বা ঐ জমির এক বা একাধিক সীমানা দ্বারা আবদ্ধ;
২০) “ঐতিহ্যবাহী ইমারত বা স্থান” অর্থ এক বা একাধিক প্রাঙ্গণে অবস্থিত এমন ইমারত বা তাহার অংশ যাহা ঐতিহাসিক, স্হাপতিক, পরিবেশগত, সাংস্কৃতিক ও নৈসর্গিক কারণে সংরক্ষণের প্রয়োজন এবং ইমারতের চারিপাশের এলাকা যাহা ইমারত সংরক্ষণের প্রয়োজনে বেষ্টনী, সীমানা দেওয়াল আবৃত করা ও যাহা পরিবেশগত সামঞ্জস্য রাখিবার জন্য প্রয়োজন, তাহাও এই উদ্দেশ্যে অন্তভূক্ত হইবে;
২১) “কতৃপক্ষ” অর্থ Town Improvement Act-1953 ( Act No. XIII of 1953) এর অধীনে প্রতিষ্ঠিত রাজধানী উন্নয়ন কতৃপক্ষ (রাজউক);
২২) “কাজের শুরু” অর্থ ইমারত নির্মাণের উদ্দেশ্যে মাটি কাটা ও পাইলিং বা ভিওি নির্মাণ বা যে কোন নির্মাণ, পুনঃনির্মাণ অথবা বিদ্যমান ইমারতে পরিবর্তন বা পরিবর্ধনের প্রকৃত সূএপাত;
২৩) “কাড় (Loft)” অর্থ মধ্যবর্তী কোন কর বা করিডোরের ছাদ এবং মেঝের মধ্যবর্তী আরেকটি ছাদ দ্বারা তৈরি সর্বোচ্চ ১.৫ মিটার উচ্চতা বিশিষ্ট স্থান;
২৪) “কোড” অর্থ বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড (BNBC);
২৫) “উন্মুক্ত জায়গা” অর্থ সাইটের এমন অবিচ্ছিন্ন অংশ যাহা ভূমিতল হইতে উর্ধ্বদিকে স্থায়ীভাবে উন্মুক্ত;
২৬) “চিমনী” অর্থ ইমারতের এমন অংশ যাহার মাধ্যম তাপ উৎপাদনকারী যন্ত্রাদি হইতে দহনক্রিয়ার মাধ্যমে নির্গত বা উৎপন্ন বস্তুসমূহ ধূমনালীর মাধ্যমে উনমুক্ত বাতাসে নিষিক্ত হয়,
২৭) “জিওটেকনিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার” অর্থ স্নাতক পুরকৌশলী যাহার জিওটেকনিক্যাল বা ফাউন্ডেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে অভিজ্ঞতা রহিয়াছে এবং যিনি বাংলাদেশ জিওটেকনিক্যাল সোসাইটি অথবা ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (IEB) এর সদস্য এবং বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
২৮) “ঝুঁকিপূর্ণ ইমারত” অর্থ কোড অনুযায়ী কাঠামোগত অনিরাপদ, জরাজীর্ণ, অস্বাস্হ্যকর, অগ্নি-ঝুঁকিপূর্ণ, যথাযথ জরুরী নির্গমন পথবিহীন, ভগ্নপ্রায়, যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণবিহীন, পরিত্যক্ত, অধিবাসী ও সংলগ্ন এলাকার জনসাধারণের নিরাপওার প্রতি হুমকি হিসাবে চিহ্নিত যে কোন ইমারত বা নির্মাণকার্য;
২৯) “ডিটেলইড এরিয়া প্ল্যান” (DAP) অর্থ কোন এলাকার পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য বিস্তারিত স্হানিক নকশাসহ পরিকল্পনা;
৩০) “ডিপ্লোমা স্হপতি” অর্থ ঐ পেশাজীবী ব্যক্তি যিনি স্বীকৃত কোন পলিটেকনিক বা কারিগরী ইনস্টিটিউট হইতে স্হাপত্য বিষয়ে ডিপ্লোমাধারী ও ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ এর সদস্য এবং বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
৩১) “ডিপ্লোমা প্রকৌশলী” অর্থ ঐ পেশাজীবি ব্যক্তি যিনি স্বীকৃত কোন পলিটেকনিক বা কারিগরী ইনস্টিটিউট হইতে প্রকৌশল বিষয়ে ডিপ্লোমাধারী ও ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ এর সদস্য এবং বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
৩২) “নির্মাণ” অর্থ যে কোন ধরনের ইমারত, ভবন বা স্হাপনা নির্মাণ, পুনঃনির্মাণ বা প্রতিস্হাপন এবং ইমারতের ব্যবহারের ধরণ পরিবর্তন;
৩৩) “নকশা” অর্থ এই বিধিমালা এর অধীন ইমারত এবং অন্যান্য স্হাপনা নির্মাণের উদ্দেশ্যে প্রস্তুতকৃত সকল নকশা,
৩৪) “নগর উন্নয়ণ কমিটি (Urban Development Committee)” অর্থ বিধি ৩৪ অনুযায়ী গঠিত কমিটি;
৩৫) “তলা” অর্থ ইমারতের যে কোন ফ্লোর বা মেঝের উপরপৃষ্ঠ এবং পরবর্তী ফ্লোর এর মধ্যবর্তী স্হান অথবা পরবর্তী ফ্লোর না থাকিলে ছাদ বা অন্য আচ্ছাদনের নীচের স্হান;
৩৬) “তালিকাভূক্ত ইমারত” অর্থ নান্দনিক, ঐতিহাসিক, বৈজ্ঞানিক, সামাজিক অথবা আধ্যাত্নিক গুরুত্ব বহনকারী এবং/অথবা প্রত্নতও্ব বিভাগ বা অন্য কোন ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গ কতৃক উল্লেখিত কারণে নিবন্ধিত ইমারত;
৩৭) “টোটাল ফ্লোর এরিয়া” অর্থ ইমারতের সকল ফ্লোর এরিয়ার যোগফল;
৩৮) “পরামর্শক” অর্থ মালিক বা আবেদনকারী কতৃক নিয়োগকৃত যে কোন স্হপতি, পুরকৌশলী, তড়িৎকৌশলী, যন্ত্রকৌশলী বা অন্যান্য প্রকৌশলী, নগর পরিকল্পনাবিদ অথবা উপরোক্ত কারিগরী লোকবলের সমন্বয়ে গঠিত যে কোন বোর্ড, কোম্পানী, ফার্ম বা অন্যান্য প্রতিষ্ঠান যাহা পেশাগত সেবা প্রদানের জন্য গঠিত;
৩৯) “পরিবর্তন” অর্থ এক ব্যবহার হইতে অন্য ব্যবহারে পরিবর্তন বা কোন কাঠামোগত পরিবর্তন, যেমন : ভবনের ক্ষেএফল বা উচ্চতার সহিত সংযোজন, অংশবিশেষ অপসারণ এবং কোন দেয়াল, পার্টিশন, কলাম, বীম, জয়েন্ট, মেঝে নির্মাণ, কর্তন বা অপসারণ এর মাধ্যমে কাঠামোর কোন পরিবর্তন, কোন প্রবেশপথ বা বর্হিঃগমন পথের পরিবর্তন বা বন্ধ করা, যে কোন উপকরণ ও সরঞ্জামাদি পরিবর্তন;
৪০) “পরিশিষ্ট” অর্থ এই বিধিমালার সহিত সংযোজিত পরিশিষ্ট;
৪১) “প্রকৌশলী” অর্থ যিনি প্রকৌশল বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রীপ্রাপ্ত ও ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (IEB) এর সদস্য এবং বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
৪২) “প্রস্হান পথ” অর্থ কোন বিল্ডিং এর যে কোন তলা হইতে রাস্তা বা নিরাপদ উন্মুক্ত স্হানে যাওয়ার জন্য বর্হিঃগমন পথ;
৪৩) “প্রাকৃতিক বায়ু চলাচল ব্যবস্থা” অর্থ ভবনের দরজা-জানালার মাধ্যমে বাতাসের স্বাভাবিক প্রবাহ ঘরের অভ্যন্তরে সরবরাহ ব্যবস্থা;
৪৪) “প্যারাপেট” অর্থ ছাদ বা তলের চারপাশ ঘিরে তৈরিকৃত রেলিং অথবা দেয়াল;
৪৫) “পার্কিং স্থান” অর্থ যানবাহন রাখিবার মতো আবদ্ধ বা খোলা, আচ্ছাদিত বা উন্মুক্ত যথেষ্ট আয়তনের একটি জায়গা, যাহার সহিত যানবাহন যাতায়ত উপযোগী একটি পথের মাধ্যমে বাহিরের রাস্তা সংযোগ আছে;
৪৬) “পরিকল্পনাবিদ” অর্থ যিনি পরিকল্পনা বিষয়ে স্নাতক বা স্নাতকোওর ডিগ্রীপ্রাপ্ত ও বাংলাদেশ ইনস্টিউট অব প্ল্যানার্স (BIP) এর সদস্য এবং বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
৪৭) “প্লাম্বিং ইঞ্জিনিয়ার” অর্থ স্নাতক স্থপতি বা প্রকৌশলী, ডিপ্লোমা স্থপতি বা ডিপ্লোমা প্রকৌশলী যাহার প্লাম্বিং বা সেনেটারী বিষয়ে অভিজ্ঞতা রহিয়াছে ও যিনি সংশ্লিষ্ট পেশাজীবি প্রতিষ্ঠানের সদস্য এবং বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
৪৮) “পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা” অর্থ যে কোন পয়ঃনালী, নর্দমা, সেপটিক ট্যাংক, পরিশোধন কেন্দ্র অথবা সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যবস্থাদি;
৪৯) “পাহাড়” অর্থ সন্নিহিত স্থান থেকে নির্দিষ্ট আয়তনের উঁচু কোন প্রাকৃতিক ভূখন্ড যাহা মাটি বা পাথরের তৈরী, প্রায়শঃই বর্তুলাকার এবং যাহার ঢাল খুব তীগ্নভাবে খাড়া নয়;
৫০) “ফরম” অর্থ এই বিধিমালার সহিত সংযোজিত ফরম;
৫১) “ফলস্ সিলিং” অর্থ করের উচ্চতার মধ্যে একটি মধ্যবর্তী অতিরিক্ত ছাদ, যাহা ভান্ডার, সার্ভিস তদারকী ইত্যাদি কাজে ব্যবহূত হয়, তবে বসবাসযোগ্য নয়;
৫২) “ফিনস্ বা লুভার (Fins or Louver)” অর্থ ইমারতের একটি খাড়া উপাদান যাহা সচরাচর সূর্য ও বৃষ্টি হইতে রক্ষা পাইবার জন্য জানালা, বারান্দা, বেলকনি ও করিডোরের বর্হিঃমুখে ব্যবহূত হয়;
৫৩) “ফিনিসড্ ফ্লোর লেভেল” অর্থ মেঝের সম্পূর্নকৃত উপরিতল;
৫৪) “ফিনিসড্ গ্রাউন্ড লেভেল” অর্থ জমির সম্পূর্নকৃত উপরিতল;
৫৫) “ফিনিসড্ সিলিং লেভেল” অর্থ ছাদের সম্পূর্নকৃত নিন্মতল;
৫৬) “ফুটপাথ” অর্থ রাস্তার পার্শ্বে বা অন্য কোন স্থানে পায়ে হাঁটার পথ;
৫৭) “ফ্ল্যাট বা অ্যাপার্টমেন্ট” অর্থ বসবাসযোগ্য একক আবাস যাহার মধ্যে রান্নঘর, গোসলখানা, শৌচাগার, প্রসাধনকর ইত্যাদি অন্তর্ভূক্ত থাকিবে;
৫৮) “ফ্লোর এরিয়া” অর্থ দেওয়ালের ও অন্যান্য ভারবাহী কাঠামোর আনুভূমিক ক্ষেএফলসহ ব্যবহারযোগ্য ইমারতের একটি তলার ক্ষেএফল;
৫৯) “ফ্লোর এরিয়া অনুপাত (Floor Area Ratio or FAR)” অর্থ জমির ক্ষেএফলের অনুপাতে ভবনে সন্নিবেশযোগ্য সম্পূর্ণ মেঝের ক্ষেএফল, যথা : একটি পটের মাঝে তৈরি সম্পূর্ণ ফ্লোর এরিয়ার যোগফলকে উক্ত পটের বিদ্যমান জমির ক্ষেএফল দ্বারা বিভাজনের ফল, যাহার ফর্মুলা নিন্মে প্রদও হইল :
FAR = {সকল মেঝের সম্মিলিত ক্ষেএফল ( বিধিমালার আওতায় ছাড়যোগ্য ক্ষেএফল সমূহ ব্যতীত)}/{জমির ক্ষেএফল ( প্রযোজ্য ক্ষেএে রাস্তার জন্য ছাড়িয়া দেওয়া জমির ক্ষেএফল ব্যতীত)}
৬০) “বসতবাড়ি” অর্থ স্বতন্ত্র বসবাস, রন্ধন, স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সুবিধাসম্বলিত এক স্বাবলম্বী বসত ব্যবস্থা যাহা এক বা একাধিক ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে গঠিত ইমারত বা ইমারতের অংশবিশেষ;
৬১) “বন্যার পানি উচ্চতা” অর্থ একটি নির্দিষ্ট এলাকার জন্য বন্যাকালীন পানির উচ্চতা, যাহা বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কতৃক নির্ধারিত;
৬২) “বসবাসযোগ্য কর” অর্থ এক বা একাধিক ব্যক্তির ব্যবহূত কর যাহা দপ্তর, লিভিংরুম, শয়ন, অধ্যয়ন বা খাওয়ার কাজে ব্যবহূত হয় তবে বাথরুম, টয়লেট, রান্নঘর, লন্ড্রি, ভান্ডার, করিডোর, প্যান্ট্রি, ভূগর্ভস্থ রুম, চিলে কোঠা, অনিয়মিত ব্যবহূত জায়গা এইরূপ বসবাসযোগ্য করের অন্তর্ভূক্ত হইবে না;
৬৩) “বহুতল ইমারত” অর্থ ১০ তলা বা ৩৩ মিটারের উর্ধ্বে যে কোন ইমারত বা ভবন, যাহাতে উচ্চতা নির্ধারনের ক্ষেএে সিড়িঁঘর, লিফট্ মেশিন রুম বা জলাধারের উচ্চতা গণ্য করা হইবে না;
৬৪) “ব্যালকনি” অর্থ ইমারতের মূল অংশ হইতে বহিঃদিকে বর্ধিত ব্যবহারযোগ্য জায়গা যাহার ভূমি পর্যন্ত বর্ধিত কোন অবলম্বন নাই এবং বাহিরের দিকে নিরেট কোন বেস্টনী দ্বারা সম্পূর্ণ আবদ্ধ নয়;
৬৫) “বিল্ডিং সার্ভিসেস” অর্থ আলো-বাতাসের চলাচল, বৈদ্যুতিক সুবিধা, শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ, উওাপন (Heating), অভ্যন্তরীণ শব্দ (Acoustics) নিয়ন্ত্রণ, লিফট্, এস্কেলেটর ও মোভিং ওয়াক স্থাপন, পানি সরবরাহ, অগ্নি-নির্বাপণ, পয়ঃ ও পানি নিষ্কাশন, গ্যাস সরবরাহ এবং টেলিফোন সংস্থাপন ও এই জাতীয় ইউটিলিটি সুবিধার সন্নিবেশ;
৬৬) “বিদ্যমান ইমারত বা বিদ্যমান ব্যবহার” এর অর্থ এই বিধিমালা কার্যকর হওয়ার পূর্বে কতৃপক্ষ কতৃক অনুমোদিত কোন ভবন এবং তাহার ব্যবহার;
৬৭) “বিশেষ মনোনীত এলাকা” অর্থ প্রাকৃতিক বা সাংস্কৃতিক গুরত্ব বহনকারী এবং মহাপরিকল্পনার অধীনে প্রস্তুত ডিটেইলড্ এরিয়া প্ল্যান (DAP) এ নির্দেশিত এলাকা;
৬৮) “বিশেষ প্রকল্প” অর্থ এই বিধিমালার আওতায় তালিকাভূক্ত বা অনুরূপ বৃহদায়তন আকৃতির বা বিশেষ ধরনের ইমারত বা স্থাপনা;
৬৯) “ভূমি আচ্ছাদন” অর্থ ইমারত দ্বারা আবৃত জমির পরিমাণ যাহা শতাংশ হিসাবে উল্লেখিত হইবে, যথা :
ভূমি আচ্ছাদন (Ground Coverage) = {(ইমারত দ্বারা আবৃত এলাকা x ১০০) / (জমির ক্ষেএফল (প্রযোজ্য ক্ষেএে রাস্তার জন্য ছাড়িয়া দেওয়া জমির ক্ষেএফল ব্যতিত)}
৭০) “ভূমি-ব্যবহার ছাড়পএ” অর্থ ক্ষেএমত কতৃপক্ষ বা সরকার কতৃক Town Improvement Act-1953 ( Act No. XIII of 1953) এর অধীন প্রণীত ঢাকা মেট্রোপলিটন মাষ্টারপ্ল্যান (১৯৯৫-২০১৫), মহানগরী, বিভাগীয় শহর ও জেলা শহরের পৌর এলাকাসহ দেশের সকল পৌর এলাকার খেলার মাঠ, উন্মুক্ত স্থান, উদ্যান এবং প্রাকৃতিক জলাধার সংরক্ষণ আইন-২০০০ (২০০০ সনের ৩৬ নং আইন) এর আওতায় প্রদও আবেদনকারীর ভূমির ব্যবহার সম্পর্কিত ছাড়পএ;
৭১) “মহাপরিকল্পনা” (Master Plan) অর্থ Town Improvement Act-1953 ( Act No. XIII of 1953) এর অধীন প্রণীত যে কোন পরিকল্পনা, যাহা বর্তমানে Dhaka Metropolitan Development Plan (1995-2015), Structural Plan, Urban Area Plan, Detailed Area Plan হিসাবে অভিহিত, গৃহীত, অনুমোদিত ও কার্যকর;
৭২) “মেজানাইন তলা” অর্থ ভবনের যে কোন দুইটি মূল তলার মধ্যবর্তী একটি মাঝামাঝি আংশিক তলা;
৭৩) “মেঝে” অর্থ ভূমির সমান্তরাল ইমারতের তলা;
৭৪) “যান্ত্রিক বায়ু চলাচল ব্যবস্থা” অর্থ যান্ত্রিকভাবে কোন ভবনে বা তাহার অংশবিশেষে বাতাস আনয়ন অথবা প্রয়োজনে বাতাস বাহির করিয়া দেওয়ার ব্যবস্থা;
৭৫) “রাস্তা” অর্থ ভূমি-জরীপ ম্যাপ, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন, রাজধানী উন্নয়ন কতৃপক্ষ, মিউনিসিপ্যালিটি বা সমজাতীয় নাগরিক সুবিধা প্রদানকারী কোন সংস্থার ম্যাপ বা রেকর্ডভূক্ত চলাচলের পথ, সকল ধরনের সড়ক, মহাসড়ক, পথ, হাঁটা পথ বিদ্যমান অথবা নির্মাণের জন্য প্রস্তাবিত স্থান এবং রাস্তা সংলগ্ন সংরক্ষিত খালি জায়গা, ড্রেন ও ফুটপাথও ইহার অন্তর্ভূক্ত;
৭৬) “রাস্তার প্রস্থ” অর্থ রাস্তা, রাস্তা সংলগ্ন ড্রেন, ফুটপাথ্ ইত্যাদিসহ রাস্তার সর্বমোট বিস্তার;
৭৭) “সংযুক্তি” অর্থ এই বিধিমালার সহিত সংযোজিত সংযুক্তি;
৭৮) “সংযোজন” অর্থ ভবনের ঘন আয়তন অথবা মেঝের ক্ষেএফলের সহিত সংযোজন;
৭৯) “সংরক্ষিত এলাকা” অর্থ ঢাকা মেট্রোপলিটন ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান এর অধীনে প্রস্তুত ডিটেইলড্ এরিয়া প্ল্যান (DAP) এ নির্দেশিত সাংস্কৃতিক বা প্রাকৃতিক ঐতিহ্যের নিদর্শনযুক্ত এলাকা;
৮০) “সারণী” অর্থ এই বিধিমালার সহিত সংযোজিত সারণী;
৮১) “স্বত্বাধীকারী” অর্থ জমির আইনানুগ মালিকানাপ্রাপ্ত ব্যক্তি, ব্যক্তি-সমষ্টি, কোম্পানী, ট্রাস্ট, নিবন্ধিত সংঘ, সরকার বা তৎঅধীনস্থ কোন সংস্থা;
৮২) “সেটব্যাক” অর্থ প্রতিটি ইমারতের সন্মুখে, পার্শ্বে এবং পশ্চাতে নুন্যতম উন্মুক্ত স্থান;
৮৩) ““সেটব্যাক লাইন” অর্থ পট বা সাইট এর মাঝে পটের সীমানা রেখার সমান্তরাল রেখা;
৮৪) “সার্ভিস কর” অর্থ বসবাস ব্যতীত অন্যান্য কর এবং আবৃত স্থান, যেমন- পার্কিং এরিয়া, এয়ার কন্ডিশনার প্যান্ট, বিল্ডিং সার্ভিসের জন্য সংরক্ষিত স্থান, জেনারেটর এর জন্য নির্ধারিত স্থান, গৃহস্থালী কাজের জন্য স্টোর রুম, স্ট্রং রুম, সার্ভিস স্টেশন, অদাহ্য বস্তু রাখিবার করসমূহ, ইত্যাদি;
৮৫) “সার্ভিস রোড” অর্থ সার্ভিসের প্রয়োজনে পটের পশ্চাতে এবং পার্শ্বে সংরক্ষিত রাস্তা বা লেইন;
৮৬) “সাইট” অর্থ ইমারত বা ইমারতের অঙ্গন নির্মাণ, মাটি বা বালি ভরাট, খনন বা পাহাড় কর্তনের জন্য নির্দিষ্ট সীমারেখা বেষ্টিত স্থান;
৮৭) “সানশেড” অর্থ রোদ বৃষ্টি হইতে রক্ষার জন্য বহিঃদেওয়ালের উপর স্থাপিত ওভার হ্যাং;
৮৮) “সার্বজনীন গম্যতা” অর্থ সার্বজনীন ডিজাইন নীতিতে নকশাকৃত নির্মিত পরিবেশ;
৮৯) “সার্বজনীন ডিজাইন” অর্থ এমন একটি নকশানীতি কার্যক্রম যেখানে শারীরবৃওীয় অবস্থান সাপেক্ষে কোন ব্যক্তি প্রয়োজনকে আলাদা না করিয়া সকল মানুষের সার্বজনীন প্রয়োজনকে পরিকল্পনায় রাখিয়া নীতি নির্ধারিত হয়;
৯০) “সুপারভাইজার” অর্থ কোন ইমারত নির্মাণ কাজ তও্বাবধানের জন্য বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত ব্যক্তি যিনি স্বীকৃত কোন পলিটেকনিক বা কারিগরী ইনস্টিটিউট হইতে প্রকৌশল বা স্থাপত্য বিষয়ে ডিপ্লোমাধারী এবং সংশ্লিষ্ট ইনস্টিটিউটের সদস্য;
৯১) “স্থপতি” অর্থ যিনি স্থাপত্য বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রীপ্রাপ্ত ও বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট (IAB) এর সদস্য এবং ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত;
৯২) “হাউজিং বা এ্যাপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স” অর্থ একগুচ্ছ আবাস বা এ্যাপার্টমেন্ট বা ফ্ল্যাটের সমাবেশ যেখানে কতিপয় সাধারণ সুযোগ-সুবিধা সম্মিলিত ব্যবহারের জন্য বিদ্যমান থাকে ।
দ্বিতীয় অধ্যায় : ছাড়পএ ও অনুমোদন পএের আবেদন, অনুমোদন এবং বসবাস বা ব্যবহার সনদ, ইত্যাদি
(৩) ইমারতের নকশা অনুমোদন ও বসবাস উপযোগিতার অনুমোদন পদ্ধতি, এই বিধিমালার অধীন ইমারতের নকশা ও বসবাস উপযোগিতার অনুমোদন পদ্ধতি ক্ষেএ বিশেষে নিন্মে উল্লেখিত সর্বনিন্ম দুইটি ও সর্বোচ্চ চারটি পর্যায়ে সম্পূর্ণ হইবে, যথা :
(ক) ভূমি-ব্যবহার ছাড়পএ (Land Use Clearence) (প্রযোজ্য ক্ষেএে);
(খ) বৃহদায়তন বা বিশেষ ধরনের প্রকল্পের জন্য বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ (Special Project Permit for Large and Specialized Projects) (প্রযোজ্য ক্ষেএে);
(গ) নির্মাণ অনুমোদনপএ (Building Permit) (সকল ক্ষেএে বাধ্যতামূলক);
(ঘ) বসবাস বা ব্যবহার সনদপএ (Occupancy Certificate) (সকল ক্ষেএে বাধ্যতামূলক);
(৪) ভূমি-ব্যবহার ছাড়পএ :
১) বিশেষ ধরণের প্রকল্পের জন্য ছাড়পএ ও নির্মাণ অনুমোদনের আবেদনপএ দাখিলের পূর্বে, কতৃপক্ষের আওতাভূক্ত কিন্তু পরিকল্পিত এলাকার বহির্ভূত যে কোন ভূমিতে উন্নয়নের জন্য কতৃপক্ষের নিকট হইতে ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ গ্রহন না করিলে কোন ইমারত নির্মাণ বা উন্নয়ন কাজ অনুমোদন করা হইবে না।
২) গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় বা তদধীন কোন সংস্হা কতৃক পরিকল্পিত ও উন্নয়নকৃত এবং কতৃপক্ষ কতৃক বেসরকারী আবাসিক প্রকল্পের ভূমি উন্নয়ন বিধিমালা-২০০৪ অথবা এতদসংক্রান্ত অন্য কোন বিধিমালা অনুসারে অনুমোদিত বেসরকারী প্রতিষ্ঠান কতৃক উন্নয়নকৃত সাইট অ্যান্ড সার্ভিসেস প্রকল্পের অন্তর্ভূক্ত জমির জন্য ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ গ্রহণ আবশ্যক হইবে না ।
৩) জমির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপএসহ প্রস্তাবিত জমি বা সাইট ব্যবহারের নিমিও ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের জন্য নির্ধারিত ফি সহ নির্ধারিত ছক (ফরম-১০১) এর মাধ্যমে আবেদন করিতে হইবে ।
৪) আবেদনপএের ৩ (তিন) কপি আবেদনকারী কতৃক স্বাক্ষরিত হইতে হইবে এবং উহার সহিত ৩ (তিন) কপি ১ : ৫,০০০ অথবা ১ : ১০,০০০ স্কেলে প্রণীত সাইটের জরীপ ম্যাপ সংযোজন করিতে হইবে যাহাতে জমি চিহ্নিত করিবার মতো আর.এস/সি.এস ম্যাপসহ একটি খসড়া স্থানিক নকশা (Location Map) থাকিবে।
(৫) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ অনুমোদনের সাধারণ শর্তাবলী :
১) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ কোন উন্নয়ন বা নির্মাণ কাজের অনুমতি নহে এবং ইহা আবেদনকারী বা কোন ব্যক্তিকে অনুরূপ কাজের শুরু কিংবা সম্পাদনের অধিকার প্রদান করিবে না ।
২) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ প্রদান বা নির্মাণ অনুমোদনের ক্ষেএে কতৃপক্ষ কতৃক যে কোন শর্তারোপে ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করিবে না ।
(৬) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ অনুমোদন, প্রত্যাখান ও আপিল :
১) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের আবেদন দাখিলের ৩০ (এিশ) দিনের মধ্যে কতৃপক্ষের নগর পরিকল্পনা শাখা প্রয়োজনে যে কোন শর্তাবলী আরোপ করিয়া নির্ধারিত ছক (ফরম-১০২) এর মাধ্যমে অনুমোদন প্রদান অথবা লিখিত কারণ প্রদর্শনপূর্বক নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৩) এর মাধ্যমে আবেদন প্রত্যাখান করিতে পারিবে ।
২) উপ-বিধি (১) অনুযায়ী আবেদন প্রত্যাখান করা হইলে আবেদনকারী নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৪) এর মাধ্যমে কতৃপক্ষের চেয়ারম্যানের নিকট Town Improvement Act-1953 এর ধারা ৭৫(১) অনুযায়ী আবেদন করিতে পারিবে ।
৩) কতৃপক্ষের চেয়ারম্যান উপ-বিধি (২) অনুযায়ী আবেদন প্রাপ্তির ৩০(এিশ) দিনের মধ্যে আবেদন অনুমোদন অথবা প্রত্যাখানের সিদ্ধান্ত প্রদান করিবে এবং কতৃপক্ষের নগর পরিকল্পনা শাখা উক্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৫) এর মাধ্যমে অনুমোদন অথবা নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৬) এর মাধ্যমে আবেদন প্রত্যাখান করিবে ।
৪) উপ-বিধি (৩) অনুযায়ী আবেদন প্রত্যাখান করা হইলে আবেদনকারী ৬০(ষাট) দিনের মধ্যে Town Improvement Act-1953 এর ধারা ৭৫(২) অনুযায়ী নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৭) এর মাধ্যমে কতৃপক্ষের নিকট আপিল করিতে পারিবে এবং কতৃপক্ষ আবেদন প্রাপ্তির ৩০(এিশ) দিনের মধ্যে নগর উন্নয়ন কমিটির মতামত গ্রহনপূর্বক আবেদন অনুমোদন অথবা প্রত্যাখানের সিদ্ধান্ত প্রদান করিবে ।
৫) কতৃপক্ষ উপ-বিধি (৪) এর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৮) এর মাধ্যমে অনুমোদন অথবা নির্ধারিত ছক (ফরম-১০৯) এর মাধ্যমে প্রত্যাখান করিতে পারিবে যাহা চূড়ান্ত বলিয়া বিবেচিত হইবে ।
(৭) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের বৈধতাকাল :
১) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের বৈধতার মেয়াদ হইবে অনুমোদনের তারিখ হইতে ২৪(চব্বিশ) মাস,
২) উপ-বিধি (১) এ বর্ণিত সময়কালের মধ্যে ভূমি ব্যবহার ছাড়পএ নবায়নের জন্য নির্ধারিত ছক (ফরম-১১০) এর মাধ্যমে আবেদন করা যাইবে, যাহা কতৃপক্ষ গ্রহণযোগ্য বিবেচনা করিলে বৈধতাকাল অবসানের তারিখ হইতে অতিরিক্ত ১২(বার) মাসের জন্য নির্ধারিত ছক (ফরম-১১১) এর মাধ্যমে নবায়ন করিতে পারিবে অথবা গ্রহণযোগ্য বিবেচনা না করিলে নির্ধারিত ছক (ফরম-১১২) এর মাধ্যমে নবায়নের আবেদন প্রত্যাখান করিতে পারিবে ।
৩) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের বৈধতার মেয়াদ উওীর্ণ হইয়া গেলে নতুন করিয়া ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের অনুমোদন গ্রহণ করিতে হইবে ।
(৮) বৃহদায়তন বা বিশেষ ধরনের প্রকল্পের জন্য বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ :
১) নিন্মলিখিত ধরনের প্রকল্পের জন্য বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ গ্রহণ করিতে হইবে, যথা :
(ক) ৪০(চল্লিশ) টির অধিক আবাসন ইউনিটবিশিষ্ট আবাসিক ভবন;
(খ) মোট ৭,৫০০ (সাত হাজার পাঁচশত) বর্গমিটারের অধিক (FAR আওতাধীন) মেঝে বিশিষ্ট যে কোন প্রকল্প;
(গ) মোট ৫,০০০ (পাঁচ হাজার) বর্গমিটারের অধিক (FAR আওতাধীন) মেঝে বিশিষ্ট বিপণী কেন্দ্র;
(ঘ) জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়ক বা প্রধান সড়কের সহিত সরাসরি সংযোগ বিশিষ্ট যে কোন প্রকল্প;
(ঙ) ইটের ভাটাসহ পরিবেশ দূষণমূলক বা বিপজ্জনক শিল্প-কারখানা;
(চ) স্হাপতিক বা ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ ভবন বা এলাকার ২৫০ (দুইশত পঞ্চাশ) মিটার দূরত্বের ভিতর যে কোন নির্মাণ বা উন্নয়ন;
(ছ) প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত এলাকার ২৫০ (দুইশত পঞ্চাশ) মিটার দূরত্বেও ভিতর যে কোন নির্মাণ বা উন্নয়ন;
(জ) পাহাড়ী এলাকা অথবা পাহাড় হিসেবে দৃশ্যমান জমিতে অথবা এইরূপ ভূমির ৫০(পঞ্চাশ) মিটারের মধ্যে যে কোন ধরনের নির্মাণ বা উন্নয়ন;
(ঝ) নদী তীরবর্তী ২৫০ (দুইশত পঞ্চাশ) মিটার দূরত্বের মধ্যে যে কোন নির্মাণ বা উন্নয়ন ।
২) উপ-বিধি (১) এ বর্ণিত বিভিন্ন ধরণের প্রকল্পের ক্ষেএে ইমারত নির্মাণ অনুমোদনপএের জন্য আবেদন করিবার পূর্বে কতৃপক্ষের বৃহদায়তন বা বিশেষ প্রকল্প অনুমোদন কমিটি এর নিকট হইতে ঐ প্রকল্পের জন্য বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ গ্রহণ করিতে হইবে এবং ছাড়পএের জন্য কতৃপক্ষ কতৃক নির্ধারিত ফি সহ নির্ধারিত ছক (ফরম-২০১) এর মাধ্যমে আবেদন করিতে হইবে ।
৩) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের আবেদনের ক্ষেএে নিন্মলিখিত তথ্যাদির ১১(এগার) সেটসহ জমির মালিকানা সংক্রান্ত দলিলাদির ১(এক) সেট সংযোজন করিতে হইবে, যথা :
(ক) ভূমি ব্যবহার ছাড়পএের অনুলিপি বা অনাপওি পএ (প্রযোজ্য ক্ষেএে);
(খ) মালিকানা স্বও্ব, হোল্ডিং নম্বর, সি.এস./আর.এস. মহানগর জরীপ অথবা সর্বশেষ প্রকাশিত জরীপ, দাগ নম্বর, পরিকল্পিত এলাকার ক্ষেএে অবস্থান নির্দেশ এবং কতৃপক্ষ কতৃক নির্ধারিত অন্য যে কোন দলিলাদি, পর্চা, শিডিউল ইত্যাদি;
(গ) প্রস্তাবিত ভবনে আনুমানিক সর্বমোট তলার সংখ্যা ও সর্বমোট মেঝের ক্ষেএফল;
(ঘ) প্রতি তলার ব্যবহারওয়ারী আনুমানিক মেঝের ক্ষেএফল;
(ঙ) প্রযোজ্য ক্ষেএে আবাসন ইউনিটের সর্বমোট সংখ্যা;
(চ) FAR এর হিসাব;
(ছ) প্রস্তাবিত উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় পানির আনুমানিক চাহিদা এবং ইহার উৎস ও সরবরাহ ব্যবস্থা;
(জ) প্রস্তাবিত উন্নয়নের জন্য বিদ্যুতের আনুমানিক চাহিদা এবং উহার উৎস ও সরবরাহ ব্যবস্থা;
(ঝ) নির্মাণ কার্যের পর্যায়ক্রম, আরম্ভকাল এবং নির্মাণের সম্ভাব্য মেয়াদ ।
৪) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের জন্য প্রণীত নকশা অনূন্য ১ : ১০০০ স্কেলে অঙ্কিত হইতে হইবে এবং উহাতে নিন্মলিখিত বিষয়গুলো সংযোজন বা চিহ্নিত করিতে হইবে, যথা :
(ক) রাস্তার পরিমাপসহ সাইটের সীমানা এবং আবেদনকারীর মালিকানাধীন সন্নিহিত জমি (যদি থাকে);
(খ) সাইটের উওর দিক-নির্দশক চিএ;
(গ) সাইটের সন্নিহিত সড়কের নাম বা ব্যক্তি মালিকানাধীন রাস্তার সহিত সাইটটি সন্নিহিত হইলে যে সড়ক হইতে ব্যক্তি মালিকানাধীন রাস্তাটির উৎপওি হইয়াছে তাহার নাম;
(ঘ) প্রকল্পের জন্য প্রস্তাবিত স্থানের মোজা, হোল্ডিং নম্বর, পট ও রাস্তা নম্বর;
(ঙ) সাইট সন্নিহিত সকল রাস্তার প্রস্থ এবং ফুটপাথ্ (যদি থাকে) এর প্রস্থ ও অবস্থান;
(চ) সংলগ্ন সড়কের প্রেক্ষাপটে পটের উচ্চতা;
(ছ) বাহ্যিক পরিমাপ ও সাইটের সীমানা হইতে দূরত্ব প্রদানসহ সাইটে অবস্থিত বিদ্যমান বা প্রস্তাবিত ভবন বা অন্যান্য কাঠামোর অবস্থান ও ব্যবহার;
(জ) সাইট সংলগ্ন ভবন বা অবকাঠামোর আনুমানিক অবস্থান, উচ্চতা এবং সাইটের সীমানা হইতে দুরত্ব;
(ঝ) সাইটে যানবাহন ও পথচারীর আগমন-নির্গমন পথের অবস্থান;
(ঞ) সাইট সংলগ্ন সকল সড়ক পার্শ্বস্থ ড্রেন, প্রাকৃতিক পানি নিষ্কাশন চ্যানেল, পানির প্রবাহমান ধারা এবং পানি নিষ্কাশনের প্রস্তাবিত ব্যবস্থা;
(ট) বিদ্যমান বৈদ্যুতিক লাইন, পানি সরবরাহ লাইন, পয়ঃনিষ্কাশন লাইনের অবস্থান (যদি থাকে) ও প্রস্তাবিত সংযোগ;
(ঠ) সাইটের মধ্যে প্রস্তাবিত আবর্জনা সংগ্রহ স্থল এবং শিল্পকারখানার ক্ষেএে বর্জ্য অপসারণের ব্যবস্থাপনা;
(ড) সাইটের ২৫০ (দুই শত পঞ্চাশ) মিটার দূরত্বের মধ্যে অবস্থিত সকল প্রাকৃতিক উপাদান (জলাশয়, উন্মুক্ত স্থান, উদ্যান, পাহাড় ইত্যাদি) ও ঐতিহ্যবাহী ইমারত এবং সাইটের অবস্থান;
(ঢ) উপরোক্ত তথ্যাবলীর সমন্বয়ে আবেদনপএের সহিত আবেদনকারী ও সংশ্লিষ্ট পেশাজীবি ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের অমুদ্রিত স্বাক্ষরসহ্ ১১ (এগার) সেট ধারণাগত নকশা (Conceptual Drawing) ।
৫) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের জন্য প্রস্তাবিত ধারনাগত নকশা ও আবেদনপএে আবেদনকারী এবং এই বিধিমালার বিধি ৪১ অনুযায়ী তালিকাভুক্ত ও প্রকল্পের ধরণ অনুযায়ী ক্ষমতাপ্রাপ্ত এইরূপ কমপক্ষে একজন স্থপতি ও একজন পুরকৌশলী স্বাক্ষর করিবেন ।
৬) কতৃপক্ষ ধারণাগত নকশার ২ (দুই) সেট অনুমোদিত বা অননুমোদিত সীলসহ ফেরৎ প্রদান করিবে এবং অবশিষ্ট ১ (এক) সেট নকশা ও দলিলাদি সংশ্লিষ্ট নথিতে সংরক্ষণ করিবে ।
(৯) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ অনুমোদন :
১) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ আবেদন প্রাপ্তির ৪৫ (পঁয়তাল্লিশ) দিনের মধ্যে কতৃপক্ষের বৃহদায়তন বা বিশেষ প্রকল্প অনুমোদন কমিটি সিদ্ধান্ত গ্রহণপূর্বক নির্ধারিত ছক (ফরম-২০২) এর মাধ্যমে অনুমোদন অথবা নির্ধারিত ছক (ফরম-২০৩) এর মাধ্যমে আবেদন প্রত্যাখান করিবে ।
২) রাষ্ট্রীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রকল্প অথবা পরিবেশগতভাবে বিরূপ প্রতিক্রিয়া হইতে পারে এমন ধরনের প্রকল্পের ক্ষেএে কতৃপক্ষ প্রকল্পের ড্রয়িংসমূহ জনসাধারণের পর্যবেক্ষণ ও মন্তব্যের জন্য প্রদর্শন করিবে এবং উক্ত প্রদর্শনীর মাধ্যমে ১৫ (পনের) দিনব্যাপী জনমত সংগ্রহ করিয়া পরবর্তীতে তাহা নগর উন্নয়ন কমিটির নিকট প্রেরণ করিবে ।
৩) যদি কোন ব্যক্তি মনে করেন যে, কোন প্রকল্প এই বিধিমালা অথবা বিদ্যমান অন্য কোন আইন বা বিধি বা প্রবিধির পরিপন্থী হইবে বা উহা জনগন অথবা পরিবেশকে ক্ষতিগ্রস্ত বা বিপন্ন করিবে তবে তাহার আবেদনের ভিওিতে উক্ত প্রকল্পের নকশাসমূহ তাহাকে পর্যবেক্ষণ করিবার সুযোগ প্রদান করিবে ।
(১০) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের বৈধতা :
১) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের বৈধতার মেয়াদ উহা প্রদানের তারিখ হইতে ২৪ (চব্বিশ) মাস পর্যন্ত বলবৎ থাকিবে এবং উক্ত মেয়াদের মধ্যে নির্মাণ অনুমোদনপএের জন্য আবেদন দাখিল করিতে হইবে;
২) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ নবায়নযোগ্য নহে এবং আবেদনকারী বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের বৈধতার মেয়াদকালে নির্মাণ অনুমোদনপএের জন্য আবেদন করিতে ব্যর্থ হইলে তাহাকে পুনরায় নতুন করিয়া উক্ত ছাড়পএের জন্য আবেদন করিতে হইবে ।
(১১) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ বাতিল : নিন্মলিখিত যে কোন কারণে কতৃপক্ষ বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএ বাতিল করিতে পারিবে, যথা :
(ক) অনুমতিপএের যে কোন শর্ত বরখেলাপ করা হইলে;
(খ) এই বিধিমালার কোন বিধি লঙ্গন করিলে; এবং
(গ) দাখিলকৃত আবেদনপএে কোন ভুল বা অসত্য তথ্য প্রদান করিলে অথবা কোন তথ্য গোপন করিয়া থাকিলে ।
(১২) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের বিষয়ে আপিল :
১) বিশেষ প্রকল্প ছাড়পএের আবেদন প্রত্যাখান বা বাতিলের তারিখ হইতে ৪৫(পঁয়তাল্লিশ) দিনের মধ্যে আবেদনকারী উপযুক্ত কারণ প্রদর্শন করিয়া নগর উন্নয়ন কমিটির নিকট নির্ধারিত ছক (ফরম-২০৪) এর মাধ্যমে আপিল করিতে পারিবে ।
২) উপ-বিধি (১) অনুযায়ী দাখিলকৃত আপিল আবেদন দাখিলের ৪৫(পঁয়তাল্লিশ) দিনের মধ্যে নগর উন্নয়ন কমিটি পর্যালোচনান্তে উহা অনুমোদন বা প্রত্যাখানের জন্য কতৃপক্ষের নিকট সুপারিশ করিবে এবং উক্ত সুপারিশের ভিওিতে কতৃপক্ষ ১০(দশ) দিনের মধ্যে নির্ধারিত ছক (ফরম-২০৫) এর মাধ্যমে আপিল আবেদন অনুমোদন বা আপিল আবেদন গৃহীত না হইলে নির্ধারিত ছক (ফরম-২০৬) এর মাধ্যমে প্রত্যাখান করিবে ।

চিরকুট: 

মন্তব্য করতে

সাদা-মাটা

  • কোনও HTML ট্যাগ কাজে আসবে না
  • ইন্টারনেট ঠিকানা এবং ইমেইল ঠিকানা সংক্রিয়ভাবে লিঙ্ক এ রুপান্তরিত হবে
  • লাইন এবং অনুচ্ছেদ সংক্রিয়ভাবে
CAPTCHA
This question is for testing whether or not you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.