বার্নিশ, প্লাস্টার এবং ডিস্টেম্পার

বার্নিশ

এটি স্বচ্ছ তরল, যা রঙ এর মতই প্রতিরোধক হিসাবে কাজ করে। রঙ এবং বার্ণিশ এর মধ্যে পার্থক্য হলো, বার্ণিশ এর বস্তুর আসল রং দেখায় (যেই বস্তুর উপর দেয়া হয় এবং অনেক সময় কিছুটা পরিবর্তন ও চকচকে হয়)।

সাধারণত রঙ এর মধ্যে যেই উপাদান থাকে, বার্ণিশ এও একই উপাদান থাকে।

বার্ণিশ সাধারণত কাঠে ব্যাবহার করা হয়। সুকবা তৈল , রজন এবং থিনার দিয়ে তৈরি।

সাধারনত চকচকে হয় তবে অনেক সময় ধুসর ও হয়ে থাকে।

বার্নিশ এর প্রকারভেদ

১। প্রাকৃতিক রজন বার্নিশ :

২। কৃত্তিম বার্নিশ :

৩। সিনথেটিক রজন বার্নিশ :

প্লাস্টার

সিমেন্ট এবং বালির মিশ্রিত প্রলেপ হলো প্লাস্টার। 1:4,1:5 ইত্যাদি অনুপাতে এই আস্তর তৈরি করা হয়। অনুপাতটি সিমেন্ট:বালি। মিশ্রিত উপাদান এর সাথে প্রয়োজনীয় পানি মিশিয়ে দেওয়াল বা সিলিং এ লাগানো হয়। এটি দেওয়ালকে যেমন সুন্দর করে তেমনি মজবুতও করে।

ডিসটেমপার 

এটা রঙ এর মতই , তবে তৈল এর পরিবর্তে পানি ব্যাবহার করা হয়। অনেক সময় একে জল-রঙ বলা হয়। এটি আবহাওয়ার পরিবর্তনে টেকসই না এবং পানিতে নষ্ট হয়ে যায় ।

মন্তব্য করতে

সাদা-মাটা

  • কোনও HTML ট্যাগ কাজে আসবে না
  • ইন্টারনেট ঠিকানা এবং ইমেইল ঠিকানা সংক্রিয়ভাবে লিঙ্ক এ রুপান্তরিত হবে
  • লাইন এবং অনুচ্ছেদ সংক্রিয়ভাবে
CAPTCHA
This question is for testing whether or not you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.