ঘরের মধ্যে রং করার পদ্ধতি

ঘরের মধ্যে প্লাস্টার এর উপর সাধারণত রং করা হয়ে থাকে। মুলত প্লাস্টিক পেইন্ট করা হয়। এটি চারটি ধাপে করা হযে থাকে

  • সারফেস প্রিপারেশন
  • প্রাইমার /  আস্তর
  • পুটি
  • রঙের কোট

সারফেস প্রিপারেশন

প্লাস্টার অবশ্যই পর্যাপ্ত শুকনা হতে হবে এবং খুব ভালভাবে কিউরিং হতে হবে। প্লাস্টার করার ৪৫ দিন পরে এখানে কাজ শুরু করা উচিত। যেকোন ধরণের ড্যাম্প, স্যাতস্যাতে, ভেজা বা নষ্ট থাকলে তা ঠিক করে নিতে হবে। এর পার পাথর বা স্যান্ড-স্টোন দিয়ে এটা ভালভাবে ঘষে নিতে হবে। প্লাস্টার করা দেয়াল সমতল হতে হবে। সমতল না থাকলে পাথর দিয়ে ঘষে সমতল করতে হবে। এতে কোন আলগা ময়লা বা অন্য কোন পদার্থ থাকলে তা সরিয়ে ফেলতে হবে। এরপার চুনাপানি দিয়ে ধুয়ে ফেললে ভাল হয়। এতে করে প্লাস্টার ভালমত শুকিয়ে যায়। এরপার স্যান্ডপেপার বা সিরিজ কাগজ দিয়ে ঘষে নিতে হবে

প্রাইমার বা আস্তর

সারফেস প্রিপারেশন হয়ে গেলে প্রাইমার বা আস্তর দিতে হয়। এক আস্তর দেয়া হয় এই প্রাইমার। মুলত প্লাস্টার এবং রং এর মধ্যে আঠালো সম্পর্ক তৈরি করে এই প্রাইমার। প্রতি গ্যালন এ প্রাইমার ৪৫ স্কয়ার  মিটার আস্তর দেয়া যায়। রোলার বা ব্রাশ দিয়ে প্রাইমার দেয়া হয়। দেয়ার পুর্বে এই প্রাইমার পানি দিয়ে পাতলা করে নেয়া হয়। এর প্রয়োগের ফলে আঠালো সম্পর্ক তৈরি হওয়ার পাশাপাশি এটি সারফেসকে মসৃণ করে, শোষণ ক্ষমতা কমিয়ে দেয় এবং রং সুন্দরভাবে ও বেশি জায়গায় ছড়িয়ে দেয়।

পুটি

কোন ফাটল বা সমস্যা থাকলে পুটি করা হয়। একে ছিট পুটিও বলা হয়। কমপক্ষে চারদিন এই পুটি শুকিয়ে নিতে হবে। বেশি পুটি যেখানে থাকবে সেখানে স্ক্র্যাপ করে নিতে হবে। সারফেস বা রং এর তলকে আরও মসৃণ করতে এই পুটি করা হয়। ১ গ্যালন প্লাস্টিক পেইন্ট এর সাথে ১ লিটার এনামেল পেইন্ট এবং ২৫ কেজি চক পাউডার মিশিয়ে এই পুটি তৈরি করা হয়।

রঙের কোট

রং ২-৩ বার প্রলেপ দেয়া হয়। প্রথম প্রলেপের পর তা ৭ দিন শুকানোর সময় দিতে হবে। এরপর দ্বিতীয় প্রলেপ দেয়া হয়। এতেও যদি রং ভাল না হয়, যেমন- পরিচ্ছন্ন না হয়ে ছোপ ছোপ থাকে, বা রং হালকা হয় তাহলে দ্বিতীয় প্রলেপের ৩ দিন পর তৃতীয় প্রলেপ দেয়া হয়। প্রথম প্রলেপের সাথে সর্বোচ্চ ২০% পানি মেশানো হয়। দ্বিতীয় প্রলেপের সাথে সর্বোচ্চ ১৫% পানি মেশানো হয়। ড্যাম্প, স্যাতস্যাতে বা ভেজা দেয়ালে পেইন্ট করা যাবে না। আদ্রতা ২০% থেকে ৫০% এর মধ্যে থাকতে হবে। সরাসরি সুর্য্যের আলো যেন পেইন্ট দেয়ার সময় না আসে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

ট্যাগ