building

নিজের বাড়ি নিজে তৈরীর আগে করণীয়....

বাসস্থান আমাদের তৃতীয় মৌলিক চাহিদা। যার বাপ-দাদার বা নিজের এক খন্ড জমি আছে সবাই চায় সেখানে নিজের মতো করে সুন্দর একটি বাড়ি বানাতে। পৃথিবীতে টোকিওর পর জমির দাম ঢাকায় সবচেয়ে বেশি। কিন্তু আমাদের বাঙালী টিপিক্যাল নেচারের জন্য আমরা বাড়ি বানানোর সময় প্রফেসনালদের সাহায্য নেই না। প্রতিটি বাড়িওয়ালার ভাব হচ্ছে হালার ইন্জিনিয়ার কিছুই জানে না আমিই বেশি জানি। এই বেশি জানার ফলে পরবর্তীতে দেখা যায় বাড়ি তৈরীর পর নানা রকম ইউটিলিটি সমস্যা, মোডিফিকেশন চলে, ভাঙাভাঙি, জোড়া

ট্যাগ

বিল্ডিং এর কাজের বিভন্ন ঘাট

1. মোবিলাইজেশন: কাজ শুরুর পুর্বে সাইটের কিছু কাজ যেমন- ফেন্সিং বা বেড়া দেওয়া, সাইট অফিস তৈরি, বাথরুম ও টয়লেট তৈরি, লেবারদের থাকার স্থান, পানি ও বিদ্যুত ইত্যাদি

2. মাঠের কাজ: পরিস্কার করা, লেভেল করা, বেঞ্জমার্ক নির্ধারণ ইত্যাদি

3. সাব-স্ট্রাকচার: মাটির নিচের কাজ যেমন-

ট্যাগ

সাভারের বিল্ডিং ধসের ঘটনা ও অভিমত

কিছুক্ষন আগে বাসায় ফিরলাম। পথে ফার্মগেইটে দাড়িয়ে ছিলাম বাসের অপেক্ষায়। ওখানেই চলছে একটি জনসভা।
একজন বেশ বয়স্ক মুরুব্বী মঞ্চে থেকে বক্তৃতা দিচ্ছেন-
" এই হারামীর ইঞ্জিনিয়াররা টাকা খেয়ে বিল্ডিং বানায়। আবার টাকা খেয়ে বিল্ডিং ভাল বলে সার্টিফিকেট দেয়। এই হারামীদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে। "
একজন ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কথাট আমাকে ব্যথিত করেছে। ব্যথিত করেছে দুইটি কারণে
1. ইঞ্জিনিয়ারদের এই ভাবে গালি দেয়ার জন্য
2. ঢালাওভাবে ইঞ্জিনিয়ারদের দোষ দেয়ার জন্য
আমি এখানে দুটি উদাহরণ দিতে চাচ্ছি

ট্যাগ

প্লাম্বিং এবং স্যানেটরি সাধারণ জ্ঞান

বাথরূম ফিকচার

ফিকচার হিসাবে এমন কিছু ব্যাবহার করতে হবে যা সহজে পরিস্কার করা যায় এবং ব্যাবহার উপযোগী রাখা যায়। এর দাম সাইজ, রঙ, আকৃতি, কী দ্য তৈরি ইত্যাদির উপর নির্ভর করে। সাধারনত সাদা এর চেয়ে রঙিন এর দাম বেশি হয়ে থাকে। আবার বড় হলে তার দাম বেশি হয়। আবার বড় ফিকচার দাম বেশি হওয়ার সাথে সাথে জয়গও বেশি দখল বেশি করে এবং পানির অপচয় বেশি হয়। যার কারণে ফিকচার পছন্দ করার সময় এইগুলি বিবেচনার মধ্যে রাখতে হবে।