কংক্রিট এর গুনাগুন সম্পর্কে কথা

ময়লা, সিল্ট ইত্যাদি কংক্রিট এর গুনাগুন নষ্ট করে ফেলে। ছোট আকারের হওয়ার জন্য এগুলো অনেক পানি শোষন করে। যার কারণে হাইড্রেশনের জন্য পানি কম হয়ে যায়। ফলাফল সরুপ এর মধ্যে ছিদ্র তৈরি হয় এবং কংক্রিট এর স্থায়িত্ব কমে যায়।

ক্লে উপাদান এগ্রিগেটের চারিদিক আবদ্ধ করে রাখে। এই কারণে সিমেন্ট এবং এগ্রিগেটের বন্ধনের পুর্বেই এর সাথে বন্ধন তৈরি হয়ে যায়। এর ফলে কংক্রিট সাংঘাতিক দুর্বল হয়ে যায়।

এই কারণে বালু ভাল নিতে হবে অথবা ধুয়ে ব্যবহার করতে হবে। তবে ধুয়ে ব্যবহার করা খুব ব্যায়বহুল এবং সময় সাপেক্ষ
পানির গুনাগুন

  • পানি লবনমুক্ত এবং পান যোগ্য হতে হবে
  • পানিতে তৈল,জিবাস্ম থাকা যাবে না

সাইটের রডের পরীক্ষা

  • রডের উৎস
  • BSTI সার্টিফিকেট থাকতে হবে, বুয়েটের সার্টিফিকেট থাকতে হবে
  • প্রতি রডের সাথেই ট্রেডমার্ক থাকতে হবে

বেন্ড টেষ্ট

  • ৯০ থেকে ১৩৫ ডিগ্রি পর্যন্ত বেন্ড করা যাবে এবং পুনরায় সোজা করা যাবে, না হলে বুঝতে হবে এটি ভাল রড না
  • রিবেন্ড বা পুনরায় সোজা করার পর কোন ক্র্যাক দেখা যাবে না।

সাইটের স্টিল সংরক্ষন

  • শুকনা জায়গায় সংরক্ষন করতে হবে। মরিচা যেন না পড়ে খেয়াল রাখতে হবে।
  • এক মাসের বেশি খোলা যায়গায় রাখা যাবে না।
  • যদি অল্প মরিচা পড়ে তাহলে ব্যবহারের পুর্বে পরিস্কার করে নিতে হবে.
  • একমাসের বেশি বাইরে রাখার প্রয়োজন হলে সিমেন্ট পানি ধুয়ে নিতে হবে

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *