ইট, পর্ব-৩

 ইটের মাঠ পরীক্ষা (Field test of bricks)

নিম্নে ইটের মাঠ পরীক্ষার পদ্ধতিগুলো দেয়া হলো-

  1. ইটের আকার-আকৃতি ও ধারগুলো ভালো করে দেখতে হবে। যদি আকৃতি সুষম হয় এবং ধারগুলো তীক্ষ্ণ হয় তবে বুঝতে হবে এটা ভালো ইট।
  2. একটি ভালো ইটে নখের সাহায্যে আঁচড় কাটার চেষ্টা করলে আঁচড় পড়বে না। যদি আঁচড় পড়ে তবে বুঝতে হবে ইটটি ভালো নয়।
  3. একটি ইটকে আরেকটি ইটের সাহায্যে আঘাত করলে যদি ধাতব শব্দ হয় তবে বুঝতে হবে এটা ভালো ইট।
  4. দুটি ইটকে ইংরেজি T অক্ষরের ন্যায় স্থাপন করে ১.৫ মি. থেকে ১.৭ মি. উপর থেকে শক্ত মাটিতে ফেলে দিলে যদি না ভাঙ্গে তবে বুঝতে হবে এটা ভালো ইট।
  5. একটি ইটকে ভেঙ্গে কয়েক টুকরা করতে হবে। যদি এগুলোতে ছিদ্রের পরিমাণ অধিক পরিলক্ষিত হয় তবে ইটটি ভালো নয়।
  6. ইটের টুকরাগুরো ভালো করে দেখতে হবে। যদি বর্ণের ভিন্নতা দেখা যায় তবে ইটটি ভালো নয়। কিন্তু যদি সুষম গাঢ় লাল বা তাম্র বর্ণের হয় তবে এটি ভালো ইট।

ইটের মাঠ পরীক্ষার সাহায্যে ইটের গুণাগুণ সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা অর্জন করা যায়। ইটের গুণাগুণ সম্পর্কে চূড়ান্ত ধারনা অর্জনের জন্য ইটের ল্যাবরেটরি পরীক্ষাগুলো করতে হবে।

ইটের ওজন

বাংলাদেশে প্রচলিত ইটের (২৪১ মিমি x ১১৪ মিমি x ৭০ মিমি ) গড় ওজন প্রায় ৩.১২ কেজি। তবে এলাকাভিত্তিক ইটের মাটির বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে ইটের এ ওজনের কিছুটা তারতম্য দেখা যায়।

বিভিন্ন প্রকার ইট শনাক্তকরণ

ইট বিভিন্ন আকার আকৃতির এবং যে জায়গায় ব্যবহার করা হবে সেই উদ্দেশ্য অনুযায়ী তৈরি করা হয়। কাঠামোগত বিবেচনা বা সৌন্দর্যের জন্য স্থপতি (Architect) কর্তৃক নির্দেশনার কারণে বিশেষ শ্রেণির ইটেরও প্রয়োজন দেখা দেয়। বিশেষ ধরনের মোল্ডেড ইট আয়তাকার ইটকে ভাঙা বা গোলাকৃতির করে ব্যবহারের ঝামেলাকে কমিয়ে আনে। নিচে বিভিন্ন প্রকার বিশেষ শ্রেণির ইটের চিত্র দেওয়া হলো-

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *