Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

সোরিং (Shoring)

সোরিং

সাময়িকভাবে বিপদগ্রস্ত কাঠামোকে সাপোর্ট প্রদান করার জন্য যে অস্থায়ী কাঠামো নির্মাণ করা হয়, তাকে সোরিং বলে। অন্য কথায়, কোনো কাঠামোর বুনিয়াদের মাটি কাটার সময় নিকটবর্তী কাঠামো ধসে যাওয়ার আশঙ্কাকে প্রতিরোধ করার জন্য অথবা নিকটবর্তী কোনো কাঠামো অপসারণের সময় অথবা কোনো ত্রুটিপূর্ণ বুনিয়াদের মেরামতের সময়, কাঠামোকে নিরাপদে রাখার জন্য অস্থায়ী যে কাঠামো নির্মাণ করা হয় তাকে সোরিং বলে। এটি দেয়ালের পাশে সাপোর্ট প্রদান করে।

প্রকারভেদ

সোরিং প্রধানত তিন প্রকার । যথা –

  1. হেলানো বা র‌্যাকিং সোর (Raking Shore) : কাঠামোর যে অংশ ভেঙে পড়ে সেই অংশ প্রতিরোধের জন্য এ জাতীয় সোর ব্যবহৃত হয়। সোর-এর ৬০ ডিগ্রি তির্যক কাঠকে রেকার বলে যা এক প্রান্ত মাটিতে এবং অন্য প্রান্ত ইমারতের দেয়ালে ওয়াল প্লেট দিয়ে নিডল এবং ক্লিট ব্যবহার করে আটকাতে হয়। রেকারকে সোল প্লেটের উপর বসাতে হয়।
  2. অনুভূমিক বা ফ্লাইং সোর (Flying Shore) : যখন ইমারতগুলো খুব কাছাকাছি থাকে বা নিচ দিয়ে চলাচলের রাস্তা রাখতে হয় তখন এ ধরনের সোর ব্যবহৃত হয়। এ ক্ষেত্রে লোড পার্শ্ববতী ইমারতে স্থানান্তর করতে হয় তাই অনুমতির প্রয়োজন পড়ে। পার্শ্ববর্তী সেই ভবনটা ভালোমতো দেখতে হবে যে অতিরিক্ত লোড নিতে পারবে কিনা।
  3. ডেড বা নিডল বা উলম্ব সোর (Dead or Niddle or Vertical Shore) : বর্তমান থাকা দেয়াল, ফ্লোর এবং ছাদে কোনো ফোঁকর করতে বা নিচের দেয়াল সরাতে এ ধরনের সোর ব্যবহৃত হয়। কাঠামোর লোড সাপোর্ট দিতে স্টিল বা কাঠের সাথে ওয়েজ বা হেড এবং সোল প্লেট ব্যবহার করা হয়।

এছাড়া সিট পাইলিং, ডায়াফ্রাম ওয়াল এবং কভারডেমও সোরিং-এর মতো কাজ করে।

চিত্র : রেকিং সোর

চিত্র  : ফ্লাইং সোর

চিত্র : উলম্ব সোর

সোরিং এর প্রয়োজনীয়তা

সোরিং নির্মাণ কাজের সাথে খুবই সম্পর্কযুক্ত একটি কাজ। এটি সাধারণত ইমারত তৈরির আগে শুরু হয়। ইমারতের নিচের কাঠামোর জন্য যখন মাটি কাটার প্রয়োজন হয় তখন পার্শ্ববতী স্থাপনার ভাঙন প্রতিরোধ করতে সোরিং ব্যবহৃত হয়। এটি কাঠামোকে অস্থায়ী সাপোর্ট দেয় যখন ইমারতের কোন অংশ ভেঙে পড়ে বা দেবে যায় অথবা উপরের অংশকে ধরে রেখে নিচের অংশে কোনো পরিবর্তনের প্রয়োজন হয়। ফ্লোর বা ছাদের মধ্যে ফোঁকর নির্মাণ সময়ও সোরিং-এর দরকার পড়ে। বুনিয়াদের অসমভাবে দেবে যাওয়ার কারণে কোনো দেয়ালে ফাটল দেখা দিলে এবং ফাটল মেরামত করার কাজে সোরিং ব্যবহৃত হয়।

সোরিং তৈরির মালামাল

সোরিং এর গঠন অবস্থা অনুসারে বিভিন্ন প্রকারের হতে পারে। সাধারণত ভালো মানের কাঠের লগ সাপোর্ট হিসাবে ব্যবহার করা হয়। কিন্তু খুব ভারী কাজের ক্ষেত্রে স্টিল ভালো কাজ দেয়। নিচে একটি কাঠের র‌্যাকিং সোর তৈরির প্রয়োজনীয় উপাংশ এর নাম দেওয়া হলো:

  1. কাঠের রেকার
  2. রেকার আটকানোর ওয়াল প্লেট
  3. নিডল
  4. ক্লিট
  5. ব্রেসিং
  6. সোল প্লেট

কাঠের কাজে ব্যবহৃত টুলস যেমন করাত, মেজারিং টেপ, পেরেক, হ্যামার ইত্যাদি ব্যবহার করে কাঠের তৈরি সোর বানানো সম্ভব।

 

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *