Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

এডমিক্চার বা উপযোগ

এডমিক্চার বা উপযোগ। এটি কংক্রিট এর কাজের সাথে সম্পর্কিত একটি খুব গুরুত্বপুর্ন শব্দ। আপনারা অনেকেই এই সম্মন্ধে অনেক কিছু জানেন। যেহেতু এটি একটি অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন বিষয়, তাই এই বিষয়টি নিয়ে লেখার আগ্রহ প্রকাশ করছে। আর আমার এক বড়ভাই (রাকসান ভাই) এটি সম্মন্ধে লেখার আগ্রহ দেখিয়েছেন। তাই ভাবলাম আমি যতটুকু জানি কিছুটা শেয়ার করি। যদি কোন ভুল অথবা তথ্যের কম থাকে তাহলে লেখাটিকে সমৃদ্ধ করার জন্য আপনার মন্তব্য বিষেশভাবে চাইছি কি এই এইমিক্সার বা উপযোগ প্রাকৃতিব বা কৃত্তিম উপাদান যা কাচা বা শক্ত কংক্রিট এর অতিরিক্ত যোগ্যতা বা বৈশিষ্ট যোগ করে।
ঠান্ডা গরম প্রতিরোধক
বায়ু-বলয় Air entrainment ব্যবহার করা হয় ঠান্ডা-গরম আবহাওয়া সহ্য ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য। বিশেষ করে যেই আবহাওয়াতে এটি হয় সেখানে বায়ু-বলয় উপযোগ ব্যবহার করা হয়।
এর ব্যবহারের ফলে কংক্রিট এর মধ্যে ছোট ছোট বাতাশের বল তৈরি হয়। বরফ ঠান্ডাতে কংক্রিট এর মধ্যে অবস্থিত পানি জমাট বেধে আয়তন বৃদ্ধি পায়। আয়তন বৃদ্ধি পাওয়াতে এই বরফ এর ভেতরে চাপ সৃষ্টি করে যা কংক্রিট এর জন্য ক্ষতিকর। কিন্তু যদি এর ভেতরে ছোট ছোট বলয় থাকে তখন বাতাস এই চাপ নিয়ে কংক্রিট এর উপর থেকে চাপ কিছুটা কমিয়ে ফেলে।
কখনো কখনো এর বায়ু হাইড্রেশন এও সাহায্য করে।
বরফ-গরন পক্রিয়া থেকে সুরক্ষার জন্য এই বায়ু বলয় সঠিক আকার, আয়তন এবং বিন্যস্ত হতে হবে। ASTM C 260 এই এডমিক্চার এর প্রয়োজনীয় গুনাগুন ঠিক করে দেয়।
এই এডমিক্চার এর সুবিধাগুলি নিচে দেয়া হলো:

  •     অতি কুয়াশা বা ঠান্ডা থেকে কংক্রিট রক্ষা করে।
  •     কার্য্যউপযোগিতা বাড়ায়
  •     টেকসই বা মজবুত

পানি স্বল্পকরণ (ওয়াটার রিডিউসার)
কংক্রিট এ এই এডমিক্চারটি খুব গুরুত্বপুর্ণ। এটিকে কংক্রিট এর ৫ম উপাদান বলা হয়। এর ব্যবহার এর কারণে তিন ধরণের কাজ করা হয়।

১। স্ল্যাম্প বাড়ানো
২। পানি-সিমেন্ট এর অনুপাত কমানো
৩। সিমেন্ট এর পরিমান কমানো

কম, মাঝারি এবং অধিক এই তিন প্রকারে পানি-স্বল্পকরণ এডমিক্চার ব্যবহার করা হয়। তা নির্ভর করে কাজের পরিধী এবং কাজের প্রকারের উপর। আবার আবহাওয়ার উপরও এই পরিমান ।

যেমন উচু স্থানে কংক্রিট তুলতে হলে পাম্প এর সাহয্যে তুলতে হয়। তখন এর স্ল্যাম্প বাড়ানোর প্রয়োজন হয়। অথবা মেঝে বা ছাদের কাজের জন্যও স্ল্যাম্প বাড়ানোর প্রয়োজন হয়। মোট কথা এই উপযোগ ব্যবহার এর কারণে কংক্রিট এর স্ল্যাম্প বাড়ে কিন্তু শক্তি কমেনা।

সাধারণ ওয়াটার রিডিউসার বা পানি-স্বল্পকরণ এডমিক্চার
এটি ৫% পানি কমায়। এবং এর স্ল্যাম্প ১ থেকে ২ ইঞ্চি বাড়ায়।
মাঝারি পানি-স্বল্পকরণ এডমিক্চার
এটি ৮% থেকে ১৫% পানি কমায়। ৪ থেকে ৫ ইঞ্চি স্ল্যাম্প ব্যবহার করতে হলে এটি ব্যবহার করা হয়।

  • গরম আবহাওয়াতে এটি বেশি ব্যবহার করা হয় যাতে করে গরম আবহাওয়াতে এর কংক্রিট কম সময়ে জমাট বাধতে না পারে
  • কংক্রিট এর প্রাথমিক জমাট বাধা (সেটিং ) ধীরগতি করে দেয়
  • কংক্রিট রাখা বা কাজের স্থানে ফেল সহজ করে

উচ্চ পানি-স্বল্পকরণ এডমিক্চার  (সুপারপ্লাস্টিসাইজার)
এটি ১২% থেকে ৪০ পর্যন্ত পানি কমায়। ৮ থেকে ১১ ইঞ্চি স্ল্যাম্প ব্যবহার করার জন্য এটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন কংক্রিট
যেই কংক্রিট এর উচ্চ ক্ষমতা প্রয়োজন এবং কম পানিগম্যতা দরকার সেখানে এই এডমিক্চার ব্যবহার করা হয়। এতে মাহক্রো বা ক্ষুদ্র সিলিকা থাকে। এই উপাদানের ব্যবহারের ফলে কংক্রিট এর যেই বৈশিষ্ঠ্য যোগ হয় তা হলো

  • পারমিয়াবিলিটি বা পানিগম্যতা কমানো
  • এর শক্তি বাড়ানো
  • টেকসই করা

উচ্চ বল বহনকারি কলাম,বীম ইত্যাদি কাঠামোতে এটি ব্যবহার করা হয়। গাড়ি রাখার স্থানেও এটি ব্যবহার করা হয়। ঘর্ষণ প্রতিরোধক কাঠামোতেও এটি ব্যবহার করা হয়। এই উপযোগ এর ব্যবহার করে ২০,০০০ পি,এস,আই পর্যন্ত কংক্রিট এর চাপ ক্ষমতা বাড়ানো যাই। এটি পেষ্ট বা অর্ধতরল কিংবা শুকনা পাউডার হিসাবে ব্যবহার করা যায়। প্রয়োজন অনুসারে অর্ধতরল বা শুকনা পাউডার ব্যবহার করা যায়। যেই প্রকারেই ব্যবহার করা যাক না কেন, গুনাগুন সমান হয়।

সেট এক্সিলারেটর (দ্রুত সেট হওয়া)
এর ব্যবহার করা হলে সিমেন্ট এর হাইড্রেশন দ্রুত হয়। যার কারণে অল্পসময়ে কংক্রিট সেট হয় এবং অল্প সময়ে শক্তে অর্জন করে।  বিশেষ করে ঠান্ডা তাপমাত্রাতে।
এক সময় ক্যালসিয়াম ক্লোরাইড এই এডমিক্চার হিসাবে ব্যবহার করা হতো। কিন্তু এটি দীর্ঘমেয়াদী কংক্রিট এর জন্য ক্ষতিকর। তাই বর্তমানে ক্যলসিয়াম ক্লোরাইড ব্যবহার করা হয় না। ইউরোপে কিছু কিছু ক্ষেত্র এর ব্যবহার সম্পুর্ন নিষিদ্ধ। ক্লোরাইড মরিচা ধরতে সাহায্য করে এবং যার ফলে রি-ইনফোর্সমেন্ট হুমকির সম্মুখিন হয়। অনেক সময় কাঠামো ভেঙ্গ পড়ে, ক্র্যাক দেখা যায়। তবে বর্তমানে ক্লোরাইড বিহীন সেট এক্সিলারেটর পাওয়া যায়।

আগে ক্যালসিয়াম ক্লোরাই ব্যবহার করা হতো কারণ এর দাম অনেক কম। কিন্তু দেখা যায় যে ২০ বছর পর এটি দুর্বল হয়ে যায়। যেকোন ধরণের এডমিক্চার ব্যবহার এর পুর্ব এর গুনাগুন, ব্যবহার বিধি সতর্কভাবে খেয়াল করতে হবে।

সেট রিটার্ডার (ধিরে সেট হওয়া)

যখন সেটিং সময় বাড়ানোর প্রয়োজন হয় তখন এই এডমিক্চার ব্যবহার করা হয়। এটি করা হয় যাতে করে কংক্রিট বিছানো, ভাইব্রেশন বা কমপ্যক্শন সঠিক ভাবে করা যায়।

ব্যবহার:

  • অনেক দুরত্ব
  • কংক্রিট এর গাড়ি রাস্তায় অনেক সময় লাগে
  • বিছানোর জন্য দক্ষ শ্রমিকের অভাব

যেই বিষয়গুলি মাথায় রাখতে হবে:

  • প্রকল্প স্থান
  • মিশ্রনের আয়তন
  • মিশ্রন বিছানোর দ্রততা
  • বিছানোর নিযম
  • ব্যবহার স্থান (বাহিরে বা ভেতরে)
  • অন্য যেকোনো কারণে দেরি হলে

যদি মোটা কোন কিছু তৈরি করতে হয় তাহলে উপরের অংশ খুব আগে জমাট বেধে যায় এবং নিচের অংশ পরে। যার কারণে ক্র্যাক দেখা যায়। এর থেকে রক্ষা পেতেও এই এডমিক্চার ব্যবহার করা হয়।e

কখন এর ব্যবহার না করলেও চলবে

  • অল্প দুরত্বে ব্যবহার হলে
  • ঠান্ডা আবহাওয়া এবং ভেতরে ব্যবহার করা হলে
  • বেজমেন্ট
  • দ্রত বিছানো গেলে

ফ্লাই এ্যাশ

ফ্লাই এ্যাশ কয়লার পোড়ানোর কারণে তৈরি হয়। এর ব্যবহারের কারণে কংক্রিট শক্তিশালি হয়, টেকসই হয় এবং সহজে এই কংক্রিট দিয়ে কাজ করা যায়।

ফ্লাই যোগ করার কারণে কংক্রিট এর মধ্যে পানি প্রবেশের ক্ষমতা কম হয়। অর্থাৎ ইমপারমিয়াবিলিটা বৈশিষ্ঠ্য যোগ হয়।

কংক্রিট প্রধানত দুই ধরনের ফ্লাই এ্যাশ ব্যবহার করা হয়। ক্লাশ এফ এবং সি

ক্লাশ এফ

ব্লিডিং এবং সেগ্রিগেশন কমায়। শৃঙ্কেজ এবং পারমিয়াবিলিটা কমায়। হাইড্রেশনের তাপমাত্রা কমায় এবং ক্রিপ কমায়।

ক্লাশ সি

এটি প্রধানত প্রি-স্টেস কংক্রিট এ ব্যবহার করা হয়। বিশেষ করা যেখানে অল্প সময়ে স্ট্রেন্থ প্রয়োজন সেখানে এটি ব্যবহার করা হয়।

শীতল আবহাওয়ার জন্য এডমিকচার

২০o ফারেনহাইট তাপমাত্রা কমার কারণে সেটিং টাইম প্রায় দুই গুন হয়ে যায়। এ থেকে রক্ষার জন্য এক্সিলারেটর এবং ওয়াটার রিডিউসার এর সমন্বয়ে এই সমস্যা দুর করা যায় বা কমানো যায়।

গরম আবহাওয়ার জন্য এডমিকচার

সাধারণত প্রতি ১০o ফারেনহাইট তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে স্লাম্প ১” কমে যায়। ৩০o ফারেনহাইট তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে সেটিং টাইম প্রায় অর্ধেক হয়ে যায়। পানির প্রয়োজনীয়তা বৃদ্ধি পায়। ওয়াটার রিডিউসিং এবং রিটার্ডার  এর ব্যবহার করে গরম আবহাওয়াতে কংক্রিট ব্যবহারে সুফল পাওয়া যায়।

চলবে………………………………………………….

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *