ব্লগ/রচনা

ভবন নির্মাণে জায়গা ছাড়ের পরিমাণ কমছে

ঢাকা মহানগরী এলাকায় নতুন ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে জটিলতা নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ লক্ষ্যে ঢাকা মহানগর ইমারত (নির্মাণ, উন্নয়ন, সংরক্ষণ ও অপসারণ) বিধিমালা-২০০৮ সংশোধন করা হচ্ছে। নয়া বিধিমালা অনুযায়ী এখন থেকে রাজধানীতে ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে চারপাশের জায়গা ছাড় দেওয়ার পরিমাণ আড়াই শতাংশ কমানো হচ্ছে। এরই মধ্যে বিধিমালাটি সংশোধনীর খসড়া চূড়ান্ত করেছে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। শিগগিরই এটি গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে। সরকারি একটি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ট্যাগ

ঈদের ছুটির জন্য করণীয়

সাইটের/কোম্পানির পক্ষ থেকে করণীয়

1. কোন নির্মাণ সামগ্রী এলোমেলো বা ছড়ানো ছিটানো রাখা যাবে না, তা সঠিকভাবে পরিমানসহ লিপিবদ্ধ করে তালা বন্ধ করতে হবে।

নিজের বাড়ি নিজে তৈরীর আগে করণীয়....

বাসস্থান আমাদের তৃতীয় মৌলিক চাহিদা। যার বাপ-দাদার বা নিজের এক খন্ড জমি আছে সবাই চায় সেখানে নিজের মতো করে সুন্দর একটি বাড়ি বানাতে। পৃথিবীতে টোকিওর পর জমির দাম ঢাকায় সবচেয়ে বেশি। কিন্তু আমাদের বাঙালী টিপিক্যাল নেচারের জন্য আমরা বাড়ি বানানোর সময় প্রফেসনালদের সাহায্য নেই না। প্রতিটি বাড়িওয়ালার ভাব হচ্ছে হালার ইন্জিনিয়ার কিছুই জানে না আমিই বেশি জানি। এই বেশি জানার ফলে পরবর্তীতে দেখা যায় বাড়ি তৈরীর পর নানা রকম ইউটিলিটি সমস্যা, মোডিফিকেশন চলে, ভাঙাভাঙি, জোড়া

ট্যাগ

মালিকের অবহেলাতে বাড়ির দুর্দশা

একটা বিল্ডিং ডিজাইনে যে পরিমাণ ফ্যাক্টর অফ সেফটি ধরা হয়, তাতে তা কলাপ্স করার সম্ভাবনাই থাকে না।
কিন্তু তারপরেও এতো বিল্ডিং কেন ধসে পড়ছে???? আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানে এর একটা এনালাইসিস।

ট্যাগ

কনস্ট্রাকশনসাইটে কনক্রীট সিলিন্ডার প্রস্তুতকরণ, সংরক্ষণ ও পরীক্ষনের আদর্শ নিয়মাবলী

কনক্রীট সিলিন্ডার প্রস্তুতপ্রণালী 

১. সিলিন্ডার সাইজঃ

  • সাধারণত কনক্রীটের কমপ্রেসিভ স্ট্রেংথ পরীক্ষণের জন্য আমরা ৬" X ১২"সিলিন্ডার স্যাম্পল তৈরি করে থাকি।
  • তবে ৪"  X ৮"সিলিন্ডার স্যাম্পলও তৈরি করা যায়, যা ASTM Standard C31/C31M-03 দ্বারা স্বীকৃত।
  • লক্ষনীয় যে, ৪ " X ৮" কনক্রীট সিলিন্ডার তৈরির সাথে বেশ কিছু উপকারিতা সন্নিহিত। যেমন ঃ 

ƒএকটি ৬" X ১২" সিলিন্ডার তৈরিতে যে পরিমাণ কনক্রীট প্রয়োজন, তা দিয়ে তিনটিরও বেশী ৪ " X ৮" কনক্রীট সিলিন্ডার তৈরি করাসম্ভব। অর্থাৎ, ৭০% কনক্রীট অপচয় রোধকরা যায়।

একটি কন্সট্রাকশন প্রজেক্ট এর আত্ম কাহিনী-০৫

এর আগে শোর পাইলের আগে পর্যন্ত আমার অবস্থা বর্ণনা করা হযেছিল। আজকে থেকে আমার উপরে শোর পাইল করা শুরু হয়েছে।
শোর পাইল করা হয়েছে শোর বা তীর এর নিরাপত্তার স্বার্থে।
এর জন্য প্রথমেই শোর পাইল করার জন্য কন্ট্রাকটর নিয়োগ দেয়া হয়। আমার শোর পাইলের ডিজাইন করেছেন বুয়েটের প্রকৌশলী। শোর পাইল কংক্রিটের পাইল বা খুটি। এর ডায়া ছিল 2'-0" এবং এর দৈর্ঘ্য ছিল ৫৮'-0"। 
শোর পাইলের সময় কাদামাটি বের হয়। এই মাটি অপসারণ করার জন্য প্রথমে একটি 'মাড ট্যাংক' এ এই কাদা পানি জমা করা হয়। ট্যাংক থাকে দুইটি। একটিতে কাদা জমা হয়। আর একটিতে এই ট্যাংক থেকে উপরের পানি বের হয়ে জমা হয়।