ইটের সোলিং

ফুটপাথে, বাগানের ভেতর, রাস্তায়, গ্রামের রাস্তায়, দালানের মেঝেতে এবং অনেক সময় কংক্রিটের ভিতের নিচে ইটের সোলিং দেওয়া হয়। এ অধ্যায়ে ইটের সোলিং সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ইটের সোলিং

ইমারতের বুনিয়াদ বা ভিত্তিতে, মেঝেতে, কলাম ও পিলারের নিচে, রাস্তার সাবগ্রেড লেভেলের উপরে যে এক দুই স্তর ইট বিছিয়ে দেওয়া হয় তাকে সোলিং বলে। সোলিং এ ইটের জোড়াগুলোর ফাঁকে বালি দ্বারা পূর্ণ করা হয়।

সোলিং তিন প্রকার। যথা-

  1. ফ্লাট সোলিং
  2. হেরিং বোন বন্ড সোলিং
  3. ডায়াগনাল সোলিং

সোলিং এর প্রয়োজনীয়তা

  1. সোলিং এর ওপর অর্পিত ওজন সাবগ্রেডের উপর ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য।
  2. সাবগ্রেডের মাটির ভার বহন ক্ষমতা কম হলে সোলিং দিয়ে সাব-বেস তৈরি করে মাটির ভার বহন ক্ষমতাকে বাড়ানো হয়।
  3. রিজিড বা ফ্লেক্সিবল পেভমেন্টের চেয়ে অনেক কম খরচে মাটির রাস্তার চেয়ে উন্নতমানের রাস্তা নির্মাণে ইটের সোলিং ব্যবহৃত হয়।
  4. কংক্রিট বা গাঁথুনির কাজের মসলার পানি চুইয়ে মাটির সাথে মিশে শক্তি যাতে হ্রাস না পায় সেজন্য ইটের সোলিং এর ফাঁকে বালি দিয়ে তার উপর পলিথিন বিছিয়ে নিচ্ছিদ্র তল তৈরি করে ব্যবহার করা হয়।

সোলিং এর ব্যবহার

আমাদের দেশে নির্মাণসামগ্রীর মধ্যে তুলনামূলকভাবে ইট দামে সস্তা। এ জন্য সোলিং এর কাজে সাধারণত ইট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। নিচে সোলিং এর ব্যবহারের ক্ষেত্রগুলো উল্লেখ করা হলো। যথা-

  1. ইমারতের বুনিয়াদ বা ভিত্তিতে।
  2. কলাম, পিলার ইত্যাদির নিচে।
  3. রাস্তার সাবগ্রেডের উপর।
  4. কালভার্টের এবাটমেন্ট এবং উইং ওয়ালের নিচে।
  5. রিটেইনিং ওয়ালের নিচে।
  6. ঘরের মেঝেতে।
  7. সীমানাপ্রাচীরের নিচে।
  8. কম খরচে ইটের সোলিং এর রাস্তা নির্মাণে।

সোলিং এ ব্যবহৃত ইটের সংখ্যা নির্ণয়

ব্রিক ফ্লাট সোলিং কাজে ইটের পৃষ্ঠদেশের ক্ষেত্রফল = ২৫.৪ সেঃ মি x ১২.৭ সেঃমিঃ। অতএব প্রতিটি ইটের ক্ষেত্রফল = ০.২৫৪ x ০.১২৭ বর্গ মিঃ।

এক বর্গমিটার জায়গায় এক স্তর ফ্লাট সোলিং এর কাজে প্রচলিত মাপের ইট লাগবে ৩১টি।

এক বর্গমিটার জায়গায় এক স্তর হেরিং বোন বন্ডের সোলিং এর কাজে প্রচলিত মাপের ইট লাগবে ৫২টি।

বিভিন্ন প্রকার ইটের সোলিং

চিত্র  : বিভিন্ন প্রকার ইটের সোলিং

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *